আর্জেন্টিনার হয়ে আগামী কয়েকটি প্রীতি ম্যাচে থাকছে না দলের তারকা খেলোয়ার লিওনেল মেসিসহ জাতীয় দলের কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়ার। আর্জেন্টিনার আগামী সূচি অনুযায়ী আগামী ৭ সেপ্টেম্বর লস এঞ্জেলসে গুয়েতামালা বিপক্ষে এবং চারদিন পর নিউ জার্সিতে কলম্বিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ দুটি খেলার কথা রয়েছে আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের। হতাশাজনক রাশিয়া বিশ্বকাপের পর বার্সেলোনা সুপাস্টারকে প্রীতি ম্যাচের জন্য অবশ্য ডাকেননি আর্জেন্টিার অন্তবর্তীকালীন কোচ স্ক্যালোনি। এমন যে হবে জানাই ছিল। তবু আর্জেন্টিনার জাতীয় দলের কোনো স্কোয়াডে লিওনেল মেসির নাম না থাকাটা এখনো অস্বাভাবিক দেখায়।মেসি না থাকাতে সুযোগ মিলেছে মাউরো ইকার্দি। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা এই ফরোয়ার্ডকে বিশ্বকাপে নেয়নি আর্জেন্টিনা। আর হতাশার এক বিশ্বকাপ কাটানো দল থেকে বাদ পড়েছেন নিকোলাস ওটামেন্ডি, এভার বানেগা, সার্জিও আগুয়েরো, গঞ্জালো হিগুয়েইনরা। মেসি-আগুয়েরো-হিগুয়েইনের শূন্যস্থান পূরণে ইকার্দির সঙ্গে আছেন ক্লাব–সঙ্গী লাউতারো মার্টিনেজ। ফরোয়ার্ড লাইনে তৃতীয় ব্যক্তি ডিয়েগো সিমিওনের ছেলে জিওভানি সিমিওনে। প্রীতি ম্যাচের জন্য ২০ জনেরও বেশি তরুণ খেলোয়ারকে তালিকায় রেখেছেন স্ক্যালোনি। তাদের মধ্যে রয়েছেন তরুণ বোকা, জুনিয়র স্ট্রাইকার ক্রিস্টানো পাভোন এবং জিওভানি সিমিওন।

গুয়েতামালা এবং কলম্বিয়ার বিপক্ষে আর্জেন্টিনা দল:

গোলরক্ষক: ফ্রাঙ্কো আরমানি (রিভার প্লেট), হেরোনিমো রুলি (রিয়াল সোসিয়েদাদ) ও সার্জিও রোমেরো (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড) ডিফেন্ডার: ফাব্রিসিও বুস্তোস (ইন্দেপেনদিয়েন্তে), গাব্রিয়েল মার্কাদো (সেভিয়া), জার্মান পেস্সেইয়া (ফিওরেন্তিনা), রামিরো ফুনেস মোরি (ভিয়ারিয়াল), আলান ফ্রাঙ্কো (ইন্দেপেনদিয়েন্তে), নিকোলাস তাগলিয়াফিকো (আয়াক্স), ওয়াল্তার কান্নেমান (গ্রেমিও), লেওনেল দি প্লাসিদো (লানুস), এদুয়ার্দো সালভিও (বেনফিকা) ও মার্কোস আকুনা (স্পোর্তিং লিসবন) মিডফিল্ডার: লেয়ান্দ্রো পারেদেস (জেনিত), সান্তিয়াগো আসকাসিবার (স্টুটগার্ট), রদ্রিগো বাত্তাগলিয়া (স্পোর্তিং লিসবন), গঞ্জালো মার্তিনেজ (রিভার প্লেট), জিওভানি লো সেলসো (পিএসজি), ফ্রাঙ্কো সেরভি (বেনফিকা), মাক্সি মেসা (ইন্দেপেনদিয়েন্তে), মাতিয়াস ভার্গাস (ভেলেস), ফ্রাঙ্কো ভাসকেস (সেভিয়া) ও এক্সেকুয়েল পালাসিওস (রিভার প্লেট) ফরোয়ার্ড: আনহেল কোরেয়া (অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ), লাউতারো মার্তিনেজ (ইন্টার মিলান), মাউরো ইকার্দি (ইন্টার মিলান), জিওভান্নি সিমেওনে (ফিওরেন্তিনা), ক্রিস্তিয়ান পাভন (বোকা জুনিয়র্স) ও পাওলো দিবালা (জুভেন্টাস)